তুমি কেমন করে ভাবলে

তুমি কেমন করে ভাবলে
আমি তোমার কথা ভাববোনা
তুমি ছাড়া আর কে আছে
যার কথা ভাববো

তোমাকে ভেবে ভেবেইতো
দিন কাটে রাত কাটে
মনে হয় দিন আর রাত গূলো
আরো একটু বড় হলে
আমরা আবার এক হবো।।

তুমি বন্ধু কেমন আছো
কোথায় হারিয়ে গেছো
কেন হারিয়ে গেছো
আমি কেমন করে
তোমায় ফিরে পাবো।।

গুলশান। নভেম্বর ১৯, রাত ১১টা।

আমার ভিতরে স্বপ্ন

শুধু রূপের জন্যে । একুশ

গতরাতে একটী স্বপ্ন প্রবেশ করেছে
আমার ভিতর গভীরে
চোখ মেলতেই দেখি দেখি তুমি আমি
এক নির্জন দ্বীপের ভিতরে।

তুমি আমায় জড়িয়ে ধরে বললে
এ কোথায় নিয়ে এলে
আমি বললাম আমি কি জানি
তুমি আমায় কোথায় পেলে।।

তুমি জানতে চাইলে এ কোন সময়
জায়গাটা কোথায়
আমি বললাম আমিতো কিছুই জানিনা
দেখি শুধু তোমায়।।

গুলশান। নভেম্বর ১৬, সকাল বেলা

অপেক্ষা

অপেক্ষা করতে পারিনা বলে
ভ্রমণ করতে থাকি
ভ্রমণে ক্লান্ত হলে বসে পড়ি
কে যেনো ধাক্কা দেয়
বলে ক্লান্ত হলে চলবেনা
বসে পড়লে হবেনা।

এ পথে বিশ্রাম নেই
গন্তব্যে যেতেই হবে
বিশ্রামপ্রেমীরা
যেতে পারেনা।

এ পথের শেষ সেখানে
জগতের শেষ যেখানে
তোমার প্রিয়ার ঠিকানায়
যেতেই হবে।

চলো তাহলে
চলতেই থাকো
বসে পড়োনা ।
দেখো চোখ মেলে
কে করছে অপেক্ষা

ঝোঁক

ঝোঁকের মাঝে চলি বলে
শোকের মাঝেই বাঁচি
সুখের ঘরে আগুন দিয়ে
তা ধিন তা ধিন নাচি।

মনের খবর কেউ রাখেনা
ধনের গোলাম ভাই
সুখের ঘরে বন্দী হয়ে
স্বাধীন হতে চাই।।

শোক সাগরে ডুবে আছি
ঝোঁকের গোলাম হই
সবাই গেলো আমায় ছেড়ে
একলা পড়ে রই।।

কবিতাটি ২০০২ আমেরিকার আন্তর্জাতিক কবিতা পরিষদ কর্তৃক পুরুস্কার প্রাপ্ত।

আমি নিজের ভিতরেই

আমি নিজের ভিতরেই
ভ্রমণ করি
দেহের ভিতর লতা পাতায়
শিরায় শিরায়।

এ পথে আমি একলা চলি
পথ ঘাট জানা নেই
একার সাথে একা চলি
অচিন ঠিকানায়।।

দেহের ভিতর তুমি থাকো
রূপ অরূপের খেলা
সেই দেহকে তাওয়াফ করি
মিলবো তোমার লীলায়।।

বাসার পথে। নভেম্বর ১৮, বিকেল সাড়ে পাঁচটা

একুশ

একুশ মানে মাতাল হাওয়া
আবেগে আবেগে চলা
একুশ মানে ফুলের বনে
বুঝ অবুঝের মেলা।

একুশ মানে পাখির পালক
মেঘের ভেলায় ওড়া
একুশ মানে ছোট নদী
উদোম ছেলের পড়া।।

একুশ মানে সাত আসমান
হাজার রংয়ের খেলা
একুশ মানে বন্দী স্বদেশ
শিকল ভাংগার বেলা।।

২৯ বছর আগের কবিতা। ২৬/২/৮৯

অজানা পথের পথিক

অজানা এক পথের পথিক আমি
কোথায় যাবো
কি তার দিশা
আজও জানিনা।

পথের দিশা দাও আমারে
কোথায় যাবো
কোন পথে যে
বলবে কোনজনা।।

পথের মালিক পথের গুরু
তুমিতো শুরুর শুরু
অন্তর করে দুরু দুরু
নিয়ে চলো অচিন ঠিকানা।।

গুলশান। নভেম্বর ৮, সকাল বেলা।

  • দিনপন্জী

    • নভেম্বর 2018
      সোম বুধ বৃহ. শু. শনি রবি
      « অক্টো.    
       1234
      567891011
      12131415161718
      19202122232425
      2627282930  
  • খোঁজ করুন