হাইকু ৩

ershadmz April 26th, 2007

১। আয়েশার একটি কথা
অনেকদিন হোল ভুলে গেছি
হঠাত্ আজ সকালে দেখি
কথাটি টবে ফুল হয়ে ফুটে আছে।

২। তুষারপাত ঘন কুয়াশা
হাঁড় কাপানো শীত
কারো সময় নেই
জীবনেরও সময় নেই।

৩। তোমার শরীরের খাঁজ দেখলেই
ভালবাসায় মেদ জমেছে
পাহাড়ের খাঁজ দেখলেই বুঝি
জুমচাষী বিশ্রাম নিচ্ছে।

৪। পথটার কথা সবাই জানে
তবুও ভুলে থাকে
সেই পথে নামতেই হয়
ফিরে যাওয়ার পথ একটাই।

৫। মাঝরাতে মধুশালায়
বুড়োর সম্বল চোখ দুটো
সেই চোখে মাল টানে
দুনিয়া মাতাল।

৬। জমিনে কুয়াশা
আকাশে জোছনা
বুড়ো ভাবছে
লাংগলের কথা।

৭। পাহাড়ী ঝরনায়
গোপীনি যায়
কৃষ্ঞের চোখ মাতাল
খেলায় খেলায়।

৮। ঈশ্বরের সামনে আয়েশা পড়ে আছে
প্রাণ নেই, পাশে শিশুটা কাঁদছে
ঈশ্বর কি ভাবছেন।

৯। যতবার ভালবাসি
ততবার মৃত্যুর চিঠি আসে
তবুও ভালবাসি।

১০। তোমার জরায়ুতে বারুদের গন্ধ
বিপ্লব জন্ম নেবে আগামীকাল
প্রভু কাঁদছেন শান্তির জন্য।

১১। চলো গোপনে ঢুকে পড়ি
কথার গুদামে
দেখবে কথাগুলো জ্বলছে
ঠোটে ঠোটে কথা বলছে।

১২। গুদামের চিলে কোঠায়
কবির বসবাস
কালি কলম কাগজ খেয়ে দিন কাটে
একটি ইদুর কি যেনো লিখছে।

১৩। প্রতিদিনই দিনটা আগামীকাল
হয়ে যায়
অতীত বর্তমান কিছুই নেই
কবিতার সড়কে শব্দহীন পথিক।

১৪। বীরেরা সব অতীতে ঘুমায়
তাদের বন্দনা করি
খালি হাতে আগামীতে যাই।

১৫। মুরগীগুলো আজকাল রামদাও হাতে
তাড়া করে
গর্তে ঢুকে ইদুরের সাথে সহবাস করি।

১৬। আমি তুমি এক বিছানায় অনেক বসন্ত
মাঝখানে শূন্যতা বিছানা পাতে
এখন আমরা তিনজন।

১৭। যখন সামনে যাচ্ছি
ঋতুগুলো উল্টো দিকে ছুটছে
তারপর একদিন শরীরটাও।

১৮। সাদা পোষাকে মুখ ঢেকেছি
বরফের চেয়েও সাদা
পুরো সাদা হয়ে গেছি
এখন শুধু শুন্যতা।

১৯। পুরুষ সারাদিন মরে
আর অবসরে
ফিরে যায় নারীর কাছে
তাপর আবার মরে।

২০।পুরুষের শরীরে নুন
নারীর শরীরে সুবাস
দুটো জিভ সারাদিন
কাজ করে।

২১। কবিরা নক্ষত্র সন্তান
পৃথিবী অসহ্য
এখানে জন্ম অসমাপ্ত
মৃত্যুও।

২২।তুমি নেই
বিরহের আয়না আছে
সেই আয়নায় তোমাকে দেখি।

২৩। তুমি মধু খাও ফুলে ফুলে
আমি থাকি বৃষ্টির আশায়
মাটি পোয়াতি হলে
আবার ফুল ফুটে।

২৪। রামের লাংগল
সীতার জমিনে
রাম রাজ্য চালায়
সীতা বিহনে।
২৫। যদি চুমো খেতে চাও
বুকে জড়িয়ে নাও
এক হাতে তালি বাজেনা।

Advertisements

হাইকু ২

                    ১। ওলান দুধে ভরে গেলে
                    শিশু সারাদিন হাসে
                    দুধ ফুরিয়ে গেলে যুবক হাসে।
                   ২।  মায়াময় পর্দা কাঁচুলি
                    পর্দার ওপারে স্তন কথা বলে
                    চোখ চুপচাপ কথা শুনে।

                 ৩। রাতে বলো দিনে বলো
                    প্রিয়ার মুখোশ থাকবেই
                    চোখে আলো থাকলে
                    চাঁদবদনী দেখবেই।

                  ৪। প্রিয়ার মনের জমিন পাহাড়ী
                    সে জমিনে পূর্ণিমার চাঁদ
                    প্রিয় চাষ করে মনের সুখে।

                  ৫। সারাদিন হাবিজাবি করে
                     বিকেলে মাল টানি প্রভু
                     তখন তোমাকে একা পাই ।

                  ৬।প্রেমের ভাষা খুবই ছোট
                     তাই তুমি ভাবো
                     প্রেমিক ভাষার ধার ধারেনা।                  

                 ৭। বাতাস এলেই গাছের পাতা ঝরে
                      মাটিতে লুটোপুটি খায়
                      মাটি পাতার ঠোটে ঠোট রাখে।

                   ৮। ভালবাসলেই মুখ খোলে
                      মেয়েরা বাগান হয়
                      ছেলেরা ফুল চুরি করে।

                   ৯। মেয়ে ছাড়া ছেলেদের চলেনা
                      প্রভু সে কথা জানে
                      আদনের বাগানে তাই হাওয়া সাথী।

                   ১০। বসন্তের বাতাসে পাতারা ঝরে পড়ে
                       আমিও ঝরে পড়ি
                       নরোম বিছানায় বুকের ভিতরে।

                   ১১। বৃষ্টিতে ঝাপসা দেখি দূরের জনপদ
                       সেই বৃষ্টিতে তোমার শরীরে আলো দেখি
                       সেই আলোতে স্বর্গ খেলে।

                   ১২। বসন্ত এলেই প্রভু গান করেন
                      তুমি ঠোট চেপে হাসলেই স্বর্গের দুয়ার খোলে
                      আর আমি নীরবে ঢুকে পড়ি।

                  ১৩। বুড়ো গোলাপের সুবাস শুঁকে
                      যুবক গোলাপ তুলে নেয়
                      বূড়োর অভিজ্ঞতা যুবক কাজে লাগায়।

                  ১৪। বুড়োর ক্ষমতা জিভে ও আংগুলে
                     যুবকের শক্তি সারা অংগে
                     বুড়ো নিশ্বাস ফেলে অতীতে ফিরে।

                  ১৫। পুরুষ থেকে নারী
                      নারী থেকে পুরুষ
                      তবুও নারী ভালবাসে
                      পুরুষের নাকে দড়ি।

                  ১৬। তুমি আর তোমার ছায়া
                      একটি ঘরে একাকী
                      নিজেকে ভিজিয়ে নাও
                      আমার কথা ভেবে।

                   ১৭। সুখ লুকিয়ে রমণীর অংগে
                      কবিতা হয় রমণে রমণে
                      পুরুষ মানুষ হয়
                      আগুনে আগুনে।

                    ১৮। ঈশ্বরের সাথে ছিলে তুমি
                        এক সময় একদিন
                        ঈশ্বর চলে গেলে
                        তুমি লাওয়ারিশ ।

                     ১৯। ভালবাসার ভাষা নেই
                         নীরব নিঃসংশয়
                         কথা হয় নিঃশব্দে
                         চোখে চোখে শুধু ইশারায়।

                      ২০। ভালবাসা সুপ্ত থাকে
                          প্রভুর আরশে
                          ভালবাসা মুক্ত হয়
                          প্রভুর পরশে।

                       ২১। ভালবাসা উদোম শরীর
                           খিলখিল হাসি
                           ভালবাসা জুলাখা বিবির
                           প্রেম অবিনাশী।

                        ২২। ভালবাসা খোদার প্রেম
                            আদম হাওয়ার লাগি
                            মানব মানবী প্রেম করে
                            তারই করুণা লাগি।                      

                     ২৩। ভালবাসা চক্ষুহীন রাজকন্যা
                           হারিয়ে গেছে পাতালপুরে
                           রাজপুত্র চলছে ছুটে তারই খোঁজে
                           সাত সমুদ্দুর তেপান্তরে।

হাইকু ১

                     ১।তুমি মাশুক, আমি আশেক
                       তুমি আদালত
                       আমি আসামী।
                  

                    ২। আমি আচার, বয়ামে তুলে রাখো
                       সময় হলে
                       চুষে চুষে খাও।
                    ৩। ঈশ্বরের সাথে ছিলাম বহুকাল
                       তারপর মানুষ হলাম
                       সেই থেকে জ্বলছি বিরহে।
                     ৪। কিষাণী বালিকার
                       হাত খসখসে
                       ঠোট টসটসে
                       হাত নেবে না ঠোট নেবে।
                    ৫। শরীর জবুথবু
                       পোষাকের বাহার
                       রূপ শুধু চোখের আহার।
                   

                   ৬। দেয়াল পাহারাদার
                       দরজায় খিল
                       উদোম শরীর
                       দেখছো বারবার।
                     ৭। কবিরা মরে যায়
                        কবিতা অমর
                        হাজার বছর পর
                        পড়ে ঘর ঘর।
                     ৮। মত্‍স্য কন্যা সরাইখানা
                        কবিকুলের আড্ডাখানা
                        পানপাত্র পূর্ণিমা চাঁদ
                        চলছে চুমুক রাত বিরাত।
                     ৯। গাছের বোটায় ফুল
                        তোমার বোটায় কি
                        আড়ালে দেখছি আমি
                        তোমার মুচকি হাসি।
                     ১০। মৌমাছিরা ফুলের মধু খায়
                         গাছতলায় আমি
                         তোমার আশায়।
                     ১১।  তোমার চোখ সাগর
                         ডুবি বারবার
                         তবুও হয়না মরণ আমার।
                     ১২।  সারাদিন দুজনের
                         আড়ি আড়ি খেলা
                         রাত হলে স্বপ্ন দেখি
                         দুজনে একলা।
                      ১৩। রাত যুবতী হলে
                          যুবকেরা পেরেক মারে
                          চাঁদ ডুবে গেলে
                          আঁধার কোলাকুলি করে।
                       ১৪।পতিত আছি
                           মাথা তুলবো বলেই
                           একদিন মুখোমুখি হবোই।
                       ১৫।  মেঘ ডাকলে
                           তোমার মুখ আমার বুকে
                           বৃষ্টি নামলেই
                           আমার মুখ তোমার বুকে।
                        ১৬।বাইরে অঝোর বৃষ্টি
                            ভিতরে অধীর রমণী
                            পুরুষ ফিরে এলে
                            ঘরের ভিতর বৃষ্টি।

                        ১৭।পাখিদুটো চুমো খাচ্ছে
                            পাহাড়ের গায় জোছনা
                            রমণীর ঠোট কাঁপছে।
                         ১৮।ছোট্ট একটু জমি
                             বৃষ্টি হলেই ফুল ফুটবে
                             ফসল হবে।
                         ১৯।রাজার ঝুলিতে সম্পদ
                             ভিখেরীর ঝুলিতে রসদ
                             কবির ঝুলিতে প্রাণ।
                         ২০।পুরুষের পোষাক নেই
                             বৃষ্টি নামে
                             নারী পোষাক খুললেই
                             ফুল ফোটে।
                          ২১। আকাংখা বুলবুলাইয়া
                              ঢুকে পড়লে
                              বের হবার পথ নেই।
                          ২২।  বিচ্ছিন্ন হও
                              অচেনা ধারনা থেকে
                              বাস করবো তোমার শরীরের
                              মাতাল গুহায়।
                           ২৩। ভালবাসবো মাতাল
                               শুয়রের মতো
                               খাবলে খাবো
                               পিছু পিছু ঘুরবো

                              রাত হলে তুমি শুয়ে পড়বে

                                
                               
                            ২৪।ঠোটে পান করে
                               কুমারী মাতাল
                               চোখে পান করে
                               বুড়ো বেহাল।
                            ২৫। বাসি হলে লোকে
                                পোষাক বদলায়
                                বাসি হলে কবি
                                মন বদলায়।
                            ২৬।নবীরা ঈশ্বরের কথা বলে
                                কবিরা মানুষের কথা
                                ঈশ্বর মানুষকে ভালবাসে।
                            ২৭। তোমার অধৈর্য উরু
                                অপেক্ষা করে আমার
                                জিনসের প্যান্টে তোমার
                                শরীর কামড়ায়।

  • দিনপন্জী

    • অক্টোবর 2017
      সোম বুধ বৃহ. শু. শনি রবি
      « সেপ্টে.    
       1
      2345678
      9101112131415
      16171819202122
      23242526272829
      3031  
  • খোঁজ করুন