নিলাম

নিলাম শুরু হলো এক দুই তিন

প্রথমে কুমারী মেয়েদের নিলাম

যাদের কোন সাহায্যকারী ছিলনা

না ছিল নিজেদের সমর্থনে কোন শক্তি

শুধু চোখে মুখে ছিল কঠিন রাগ

আর অসহায়ত্বের করুন ছবি।

ওদের মায়েদের চোখে ছিল অশ্রুর বন্যা

নীরবে দেখছিলো তাদের কন্যার নিলামের বাজার

শুধু দেখছিলো অত্যাচারীরা তাদের কন্যার

বদলে রাশি রাশি সোনা ঝোলায় ভরছিলো।

এরপর নারীদের নিলাম এক দুই তিন

যাদের চোখে মুখে ছিল তাদের প্রিয়তম

স্বামীদের জন্যে সত্যিকারের ভালবাসা।

এরপর নিলাম হাতে পায়ে বেড়ি পরা

যুবক ও পুরুষদের।

আর এটাই ছিল মহাসভ্য সাহেবদের

দাসদের বেসাতি।

Advertisements

সাদা সমালোচক

বিতর্কিত বিষয়ে না লিখতে আমায়

সাদা সমালোচকের পরামর্শ

স্বাধীনতা বা হত্যা বিষয়েও

না লিখতেও তার পরামর্শ রয়েছে।

এমন বিষয়ে লিখতে হবে

যা হাজার বছর বেঁচে থাকবে

মহাকাব্যের মতো

যা গ্রীক মীথের ইউনিকর্নের মতো।

সাদা সমালোচক বলেছেন

স্বাধীনতা বা সংগ্রামের লেখায়

তেমন আকর্ষন কি আছে?

ডাডলি রেন্ডাল

এখনও যথেস্ট অবোধ্য হতে পারিনি

আমি জানি এখনও আমি

প্রচুর অবোধ্য হয়ে উঠতে পারিনি

আমি জানি আমি এখনও

সমালোচকদের তুষ্ট করতে পারিনি।

ধ্বংসলীলাকে বর্নননের জন্যে

আমি এখনও মোলায়েম

কোন শব্দ বা উপমা পাইনি।

রক্ত বা হত্যাকে আমি

কোন কাব্যিক শব্দ দিয়ে সাজাবো

পিটিয়ে মারা বা হায়েনার নৃত্যকে

আমি আর কোন শব্দ দিয়ে সাজাবো।

হে নরোম মধুর মোলায়েম কবিকুল

আসো একবার এখানে

দেখো সাহেবের রসুইঘরে

কেমন করে কাজ করে

একজন কালো মেয়ে।

কেমন করে কি ভাষায় বলবো

কালো মেয়েটির কস্টের কথা

কস্ট দু:খ বেদনার বদলে

আর কোন ভাল শব্দ নেই

আমার কাছে।

কালো বালকটার কথা আমি

আর কোন ভাষায় বলবো

যে মৃত্যুর চেয়েও

আরও কালো হয়ে উঠেছে

প্রশ্ন করে জেনে নাও

তার কাছে মৃত্যু আর কতদূরে।

হে প্রিয়তম ঈশ্বর

তুমি দেখছো তোমার সৃস্টির

সৌন্দর্য ঝুলে থাকা পাতায় পাতায়

আমি দেখছি ঝুলে থাকা

মৃত মানুষের লাশ।

রে ডুরেম( ১৯১৫- ১৯৬৩)

নীরবতার ভিতর

রাত্রির নীরবতায়

আমার একাকীত্ব তখন

শুধু আকাশের অপেক্ষায়

কাতর হতো।

আমি তখন তোমার পাশে

চুপচাপ শুয়ে পড়তাম

তুমি আসার আগে

আমি হাজারো আকাশের

সন্ধান করেছি।

তোমার পাশেই আমি

ফিরে থাকতাম

বিকেলের মৌনতায়

আমি আবার নীরবতায়

পায়চারি করতাম।

আমি নিজের ভিতর

প্রবেশ করলে

তখনও তুমি পাশেই থাকতে।

আমি হাজারো মাইল

অতিক্রম করেছি

তোমাকে পাওয়ার আগে।

স্টেফেনি (১৯৪৭ )

যদি কবি হতাম

আমি যদি কবি হতাম

আমার শব্দ বাক্য ও ছন্দ

যথেস্ট ছিল তোমাকে

হরণ করার জন্যে।

আমি তোমাকে সমুদ্রে নিতাম

না হয় নিঝুম দ্বীপে

হয়ত বা আমার ঘরে।

আমার ছন্দে তোমাকে

সাজিয়ে নিতাম

বৃষ্টির ধারায় ভিজিয়ে দিতাম।

মন জয়ের জন্যে

তোমার জন্যে গাণ লিখতাম

এষ অবধি মায়ের কাছে

নিয়ে যেতাম তোমাকে

আমি যদি কবি হতাম

তোমাকে হরণ করতাম।

নিকি জিওভানি (১৯৪৩)

বিপ্লবের জন্যে কবিতা

 

আমি একজন কালো নারীকবি

আমি এখন ২৫

আমি তোমাকে বলতে চাই

তুমি কি খুন করতে পারবে

যদি তারা আমায় খুন করে

তবুও বিপ্লব থেমে থাকবেনা।

আমি লুন্ঠিত হয়েছি

জানতাম তারা আমায়

আঘাত করবে

তারা শুধু জানেনা

তবুও বিপ্লব থামবেনা।

তারা আমার টিভি

দুটো আংটি,আফ্রিকান প্রিন্ট

যত মাল সামান

সব লুট করেছে

তবুও বিপ্লব থামবেনা।

ওরা আমার ফোনে আড়িপাতে

ওরা আমার চিঠি খুলে ফেলে

ওরা আমাকে বিচ্ছিন্ন করেছে

বন্ধুদের কাছ থেকে

আমি যদি সকল কালোকে ঘৃণা করি

তবুও বিপ্লব থামবেনা।

আমি বলছি তোমাদের

বিপ্লব এখন ঘরে বাইরে

সড়কে সড়কে আকাশে বাতাসে

তোমরা ওদের কালো মনকে

হত্যা করো

আর নিজেদের ষোলয়ানা কালো ভাব

আর বিপ্লবকে সফল করো।

নিকি জিওভানি(১৯৪৩)

আমি যখন তেরো

আমি এখন তেরো

ন’তে আংগুলের কাজ শিখেছি

কাল রাত সাহেবের ছেলে

আমার কাছে এসেছিল

মা আমার পাশেই ছিল

ঘুমের ভিতরই যেনো বললো

এভাবেই সব হয়েছে

এভাবেই সব হয়

এভাবেই সব হবে

এভাবেই আমিও একদিন

মা হবো দাদী হবো

সাদারা আমাদের মা বাপ

এই সুন্দর জগতে

স্বর্গে যিশু আমাদের পিতা।

(নাম না জানা কালো কবির কবিতা)

১৮৭৯ সাল

  • দিনপন্জী

    • অক্টোবর 2017
      সোম বুধ বৃহ. শু. শনি রবি
      « সেপ্টে.    
       1
      2345678
      9101112131415
      16171819202122
      23242526272829
      3031  
  • খোঁজ করুন