আমাকে যেতেই হবে মিছিলে

এখন যে সময়
তাতে আমাদের ভালবাসা কিছুদিন
স্থগিত থাক আয়েশা
যখন দেখা হবে
বুক ভরা নিশ্বাস নিয়ে বলবো
আমি তোমায় ভালবাসি
আই লাভ ইউ
মাই ডিয়ার আয়েশা
চাঁদের কথা
জোছনার কথা
ফুল পাখি আর রূপালী মাছের কথা
ফিংগে আর মাছরাঙা পাখির কথা
মাঝির ভাটিয়ালী গাণের কথা
সোনালী ফসলের কথা
ঘোমটা পরা নতুন বধুর কথা
সব জমা রাখো তোমার বুকে
প্রিয়তম আয়েশা।
এখন শুধু আমাদের নিজেদের কথা
ভাবার সময় নয়
৭১ এ দেশ স্বাধীন করেছিলাম
আমরা চিরসুখী হবো বলো
জানিনা হঠাত্‍ কেন যে এমন হলো
এমন হবার কথাতো ছিলনা আয়েশা
তবুও কেন হলো
ভাল করে ভেবে দেখো।
আমার জীবনটাতো আবেগে আবেগেই
কেটে গেলো
বুদ্ধি খরচ কোন কিছুই করতে পারিনি
এ জীবনে
না পেরেছি তোমকে ভালবাসতে
না দেশকে
তাই আমি নেতা না হয়ে কবি হয়েছি
নেতারা নাকি মাথা দিয়ে চলে
তাদের নাকি অনেক বুদ্ধি
আমারতো শুধু হৃদয়টাই আছে
হৃদয় আমাকে দিয়ে
যা বলায় আমি তাই বলি
আমি তাই করি।
আমার ব্যর্থতার সীমা নাই জানি
জগত সংসারের অনেক কাজই
আমি করতে পারিনি
আমার ভালবাসা যে কত খাঁটি
তা তোমার চেয়ে
বেশী আর কে জানে বলো?
বুদ্ধি আর মাথার দরকার আছে
এ কথা আমি মানি
তা বলে এ জগতে
ভালবাসার কি কোন প্রয়োজন নেই
আমিতো জানি
ভালবাসা না থাকলে
জগত কিছুই হয়না
ভালবাসা না থাকলে
দেশ স্বাধীন হয়না
ভালবাসা না থাকলে
দেশ বড় হয়না
ভালবাসা থেকেইতো দেশের সৃষ্টি হয়
ভাল মানুষের জন্ম হয়
আজ এতো কলহ
এতো খুনোখুনি
এতো রক্তারক্তি
এতো প্রাণের বিনাশ
কেনো জানো আয়েশা
শুধু ভালবাসার জন্যে
কোথাও কোনো ভালবাসা নেই
আছে শুধু অহংকার
আছে জেদা জেদি
আছে শক্তি দেখাবার
অশ্লীল এক মনোভাব
রাস্ট্রটা যেনো কারা
বাপ দাদার মৌরসী পাট্টা
বন্ধকী সম্পত্তি
না আয়েশা
আমাকে যেতে দাও
আমি আবার মিছিলে যাবো
প্রয়োজনে আবার যুদ্ধ করবো
জগতের সকল স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে
লাল সবুজের পতাকা
আকাশে উড়বেই উড়বে
জগতের কারো ক্ষমতা নেই
এ পতাকা নামিয় ফেলে
কারো ক্ষমতা নেই
এ মাটিকে খাবলে খায়
প্রিয়তমা আমি এখন এ সময়ে
বয়সের কথা ভাববো না
আমাকে যেতেই হবে মিছিলে
শ্লোগান দিতেই হবে
বলতেই হবে
‘ এবারের সংগ্রাম দেশরক্ষার সংগ্রাম
এবারের সংগ্রাম দেশ বাঁচাবার সংগ্রাম’।

Advertisements

রাস্ট্র

রাস্ট্র / এরশাদ মজুমদার

হে রাস্ট্র, তোমাকেতো আমিই
সৃষ্টি করেছি
আমিইতো তোমার জন্যে
সব হারিয়েছি
আমি আজ বাস্তুহারা পিতৃমাতৃহীন
তোমাকে ঘর দেবো বলে
আমি ঘরহারা হয়েছি
আমিই তোমাকে হানাদার মুক্ত করেছি
এই দেখো আমার বাপদাদার কবর
সবাই জীবন দিয়েছে
কোম্পানীকে খেদাবে বলে
আজ তুমি আমারই মাথার
খুলি উড়িয়ে দিচ্ছো
আজ তুমি আমার প্রিয়তমার
ঘরে আগুন দিয়েছো
আমার সন্তানের গলায়
ফাঁসীর রজ্জু পরাচ্ছো
হে রাস্ট্র,আমি কি এজন্যেই
তোমাকে ঘরে এনেছি
সাত সাগরের পানি সেঁচে?
হে আমার পিতা
হে আমার স্রষ্টা
তুমিতো জীবনের দামে
আমাকে পেয়েছো
জাতীয় সংগীত পেয়েছো
জাতীয় পতাকা পেয়েছো
বিশ্ব দরবারে আসন পেতেছো
বিশ্ববাসী তোমায় স্বাধীন বলে
আর কি চাও তুমি?
আমি ছিলাম রাজা বাদশাহর
আমি ছিলাম স্বৈরশাসকের
আমি ছিলাম শক্তিমানের
আমি চিরকালই বীরভোগ্যা
এখন আমি গণতান্ত্রিক দানবের
তুমিতো একজন বা হাজার জন
অতি সাধারন মানুষ
হাজার বা লাখে আমার কিছু
আসে যায়না
আমি রাস্ট্র,আমার মর্যাদা শক্তিতে
তাইতো আমার অস্ত্রধারী
বাহিনী লাগে
হে পিতা, হে রাস্ট্র প্রতিষ্ঠাতারা
তোমরা আজ নি:স্ব
তোমরা সর্বহারা
তোমরা দূর্বল
শক্তিমানেরাই আমার স্বামী
আমি তাদেরই ভোগ্যা
তুমি এখন দূরে থাকো
শক্তিমান আর রাস্ট্র এখন
গোপন সংগমে রত আছে
এখানে এখন জনতা বা
পিতামাতার কোন স্থান নাই।