আমি দেখে যেতে যাই তোদের শত্রু কে?

তোমরা যে যেখানেই থাকো
যতদূরেই থাকো
আমি তোমাদেরকেই বলছি
আমি জেগে থাকবো
আমি জেগে আছি
যেমন জেগেছিলাম
ঘুমহীন চল্লিশ ঘন্টা
পঁচিশ মার্চ রাতে একাত্তুরে
আসলে আটকে ছিলাম
মতিঝিলে অবজারভার ভবনে।
রাত এগারটায় কন্টিনেন্টাল ছেড়ে
অবজারভারে ফিরে গিয়েছিলাম।
নেতারা হয়ত জানতেন
সেনা বাহিনী নামব
মানুষ হত্যা করবে
বাড়ি ঘরে শহরে বন্দরে
গ্রামে গ্রামে বস্তিতে বস্তিতে
আগুন দিবে
শত্রু খুঁজে বের করার জন্যে
ঝাঁকে ঝাঁকে গুলি ছুড়বে
ভাইয়ের বুকে
দুদিন আগেও যাদের সাথে
কোলাকুলি করেছি
আপন সোদর বলে
হঠাত্‍ তারা শত্রু হয়ে গলো।
কিন্তু কেন
বনিবনা হচ্ছেনা
ব্যস,কথা বলে
ভাগ বাটোয়ারা করে
আলাদা হয়ে যাও
খুনাখুনির কি আছে এখানে
জোর করে কি কিছু
রক্ষা করা যায়?
না যায়না
জমি জিরাত সম্পর্ক
দেশ রাস্ট্র সম্পদ
কিছুই খুনাখুনি করে
রক্ষা করা যায়না।
আমি তোমাদের বলছি
যে যোখানেই থাকো
দূরে কিংবা কাছে
ঘরে কিংবা বাইরে
আমি জেগে আছি
আমি জেগে থাকবো
যেমন ছিলাম
একাত্তুরের কালো রাত্রিতে
এখনতো দুই হাজার তেরো
তবুও কেন আমি জেগে থাকি
কেন ভাবতে হয়
তোরা সব ভাল আছিস কিনা
একাত্তুরে বাবা মা বলেছিল
তোরা ভাল থাক
তোরা ফিরে আয়
আমি তোদর অপেক্ষায় থাকবো
তোরা নাকি দ্বিতীয় মুক্তিযুদ্ধ
শুরু করেছিস
কিন্তু কেন?
এখন আর কি ভাটোয়ারা করবি
কেনইবা করবি
এবার তোদের বিরোধ কি
তোদর ভাষা এক
দেশ এক
সবইতো এক
তবুও কিসের যুদ্ধ আবার
বুঝিয়ে বল এবার তোদের
কে মিত্র আর কে শত্রু
আমি দেখে যেতে চাই
তোদের শত্রু কে
আর তোদের মিত্র কে
তাই জেগে আছি
জেগে থাকবো
শেষ ঘুমের আগে
তোদের পতাকাটা
এবার ঠিক থাকবেতো?