এবার তোরা বন্দে মাতরম বল

এমন বাংলাদেশ কি কেউ চেয়েছিল
জানিনা কেউ চেয়েছে কিনা
আমিতো চাইনি
কেন বাপদাদারা পাকিস্তান চেয়েছিলেন
জানিনা
এ নিয়ে তাদের সাথে
তেমন কোন আলাপ আলোচনা হয়নি।
বুদ্ধি হবার পর থেকে দেখছি
আমরা স্বাধীন
স্বাধীন আমাদের দেশ।
এই স্বাধীন দেশেই আমি বড় হয়েছি
একদিন দেখলাম
চাঁদ তারা পতাকার দেশটার
স্বাধীনতা ভিত নড়বড়ে হয়ে গেছে
পূর্ব আর পশ্চিমে সীমাহীন বিরোধ
ভাগাভাগি নিয়ে
যমন ভাইয়ে ভাইয়ে হয়
পরিবারে পরিবারে হয়
আয় রোজগার
ব্যবসা বাণিজা
চাকুরী বাকুরী
সব খানে বেহিসেব গরমিল
কেউ বেশী খাচ্ছে
কেউ কম খাচ্ছে
কেউ খেতেই পায়না।
হয়ত ভাইয়ে ভাইয়ে কথা বলে
সালিশ করে বিরোধ মিটানো যেতো
যেমন মিটানো হয়েছিল সাতচল্লিশে
হুট করে অদৃশ্য পরম বন্ধু ঢুকে গেল
দুই ভাইয়ের ঘরোয়া বিরোধে
বুদ্ধি দিলো তাদের আর
মিল মহব্বত হবেনা
এখন সালিশরও সময় তেমন নেই
আদালতি বিচারেও লেগে যাবে
বছরের বছর।
তার চেয়ে ভাল দা কুড়োল
গোলা বারুদ নিয়ে নেমে পড়
আমিতো আছি
সাতচল্লিশেই বলেছিলাম
অমন চাঁদতারা দেশর সাথে যাসনা তোরা
তোদের বাপদাদারা শোনেনি
আমরাতো জানতাম
ওই দেশটা কখনই টিকবেনা
তোদের বাপদাদাদের অনেক বুঝিয়েছি
তাদের ছিল তখন মাথা খারাপ
একেবারে পাগল হয়ে গিয়েছিল
চাঁদতারার জন্যে
বলেছিলাম চাঁদের চেয়ে সূর্য অনেক বড়
সূর্য না হলে এ সৃষ্টিই বাঁচবেনা
সূর্য সকল মানুষের দেবতা
নতুন পতাকা বানিয়ে নে
সূর্যকে বুকে টেনে নে
দেখবি সবুজের বুকে
সূর্য কেমন তোদের মাথার উপর
আলো দেবে।
তাই আমরা বন্ধুর কথা শুনে
লাল সবুজের পতাকা তুলেছি
আজ দুই হাজার তেরো সালে
যে বাংলাদেশ আমি দেখছি
তাতো কখনই চাইনি
লাল সবুজের পতাকাটা
পুরোটাই লাল হয়ে গেছে
মানুষের রক্ত
গাঁও গেরামে মরছে মানুষ প্রতিদিন।
কিন্তু কেন
কিসের জন্যে
কি নিয়ে ভাইয়ে ভাইয়ে
আবার বিরোধ
কারা আবার বিরাধের আগুন
জ্বালিয়ে দিয়েছে
সোনার বাংলায়
ত্রিমুর্তির বন্ধু তুমি কোথায়
ত্রিরঙা পতাকার বন্ধু তুমি কোথায়
এবার কি বলে
বিরোধ মিটাবে আমাদের
এখনতো সূর্যই আমাদের একমাত্র দেবতা
তুমি যেমন চেয়েছিলে ঠিক তেমন
তবুও কেন এমন রক্তারক্তি।
আমিতো জানতাম
রাজা হবার মতো বুদ্ধি তোদের নেই
তোরাতো কখনই রাজা ছিলিনা
এখন বুঝে দেখ রাজা হওয়া কত কঠিন
চাষা ভুষারা কখনই রাজা হতে পারেনা
ভাবিস না সব মিটে যাবে
আর কটা দিন সবুর কর
জয় বাংলা, জিন্দাবাদ ছেড়ে
এবার তোরা ‘বন্দে মাতরম বল’
দেখবি সব ঠিক হয়ে গেছে।

অন্ধকারকে ভালবেসোনা

আমাকে দেখেই পাগল হয়োনা
প্রেমে পড়োনা
ভালবেসানা
হৃদয় কাঁপানো চেহারা আমার
সে খোদারই ইচ্ছা
কেন অপরূপ করে সৃষ্টি করেছেন
আমাকে কখনই জানিনি
জানার আগেইতো আমি এসে গেছি
এই জগতে।
তুমি খুব ভাল করে নিজেকে
জেনে নাও
এখনও সময় আছে
যে নিজেকে চিনেনা সে কিছুই চিনেনা
সে অন্ধ, তার হৃদয় চক্ষুহীন
নিজেকে চিনতে পারেনা বলেই
সে আমাকে ভালবাসে
আমার প্রেমে পাগল।
বার বার বলেছি আমি
না জেনে পাগল হয়োনা
আমাকে জানতে হলে হৃদয় চক্ষু খোল
পর্দার অন্তরালে কি আছে দেখো
কোথায় আলো আর কোথায় অন্ধকার
ভাল করে দেখো
পর্দার বাইরে আমি এক
পর্দার ভিতরে আমি আরেক
অন্ধকারের রহস্য জানতে
ওদিকে ছুটে যেওনা
আমি থাকি
আমি কখনই আলোতে যাইনা
আলোকে আমার বড় ভয়
আলো আমার রহস্য
প্রকাশ করে দেয়।
তোমারতো আলোর দিকে
ছুটে যাওয়ার কথা
তুমি আলো থেকে এসেছো
আলোতেই ফিরে যাবে
আলোই তোমার ঠিকানা
তাই তোমায় বলেছি
রূপ দেখে বিভ্রান্ত হয়োনা
রূপতো মরীচিকারই আরেক রূপ
আমার প্রেমে পাগল হয়োনা
এ প্রেম তোমাকে অন্ধকারে নিয়ে যাবে।