আমি সেই দেশের কথা বলছি

আমি সেই দেশ থেকে বলছি
যেই দেশে যোল কোটি লোক বাস করে
মানুষ বলবো কিনা ভাবছি
দেখতে মানুষের মতো হলেও
সবাইতো আর মানুষ নয়
সবার মনুষ্যত্ব থাকেনা
সবার মানুষের মতো বোধ থাকেনা।
আমি সেই দেশ থেকে বলছি
যেই দেশে কিছু লোক
চোখের সামনে ডাকাতি করে
একদিন অভিজাত হয়
মন্ত্রী শান্ত্রীর বেয়াই হয়
এমপি হয় মন্ত্রী হয়
হাজার কোটি টাকার মালিক হয়
ভোর হলেই খাই খাই করে
রাত হলে বোতল চাখে
নারীর কোলে ঢলে পড়ে
দেশে অথবা বিদেশে।
আমি এমন একটি দেশ থেকে এসেছি
যেখানে শত বছরেও
গরীবের ভাগ্য বদলায়না
যেখানে গরীবেরা উত্‍পাদন করে
আর কিছু লোক লুটেপুটে খায়
যেখানে কৃষক শ্রমিক দিন মুজুর
দুবেলা খেতে পায়না
যেখানে শিশুরা গৃহ শ্রমিক হয়
জীবন দেওয়ার জন্যে
যেখানে পিতা মিছিলে জীবন দেয়
যেখানে মা নির্যাতিত হয়
সমাজপতিদের হাতে।
আমি সেই দেশ থেকে এসেছি
কিছু কথা বলবো বলে
নেতারা বলেছিল জীবন দাও
স্বাধীনতা দেবো
সুখ পাবে শান্তি পাবে
থাকার জায়গা পাবে
শিক্ষা পাবে
দুবেলা খাবার পাবে
চিকিত্‍সা পাবে
শুধু জীবনটা দাও
শুধু একবার জীবনটা দাও।
তিরিশ লাখে আমরা
নিরানব্বই দশমিক নয়
ওরা শূণ্য দশমিক এক
বলতে পারিনা বুক ফেটে কান্না আসে
ওরা দেশটাকে দখল করে নিয়েছে
আমরা আজ দেশহারা
আমাদের কোন স্বাধীনতা নেই
আমরা পরাধীন
আমাদের আছে শুধু
জাতীয় পতাকা
জাতীয় সংগীত
জাতীয় ফুল পাখি।
আমি সেই দেশের কথা বলছি
যেই দেশের লোক
স্বাধীনতা খায়
ফুল পাখি খায়
জাতীয় সংগীত খায়
আর হাটে মাঠে
সুর তুলে গাণ ধরে
‘আমার সোনার বাংলা
আমি তোমায় ভালবাসি’