দয়া তোমাকে করতেই হবে

আমার যত নালিশ অভিযোগ অভিমান

তোমার বিরুদ্ধে, বলো আর কাকে মানবো আদালত

দু:খভরা বেদনার কাফনে ঢাকা জীবনের কথা বলতে

তুমিইতো সব, তুমিইতো আমার দিনরাত্রি সুখ দু:খের আধার

এ জীবনের কুড়ানো বেছে নেওয়া সব দু:খের কথা তোমাকে জানাই

তুমিইতো ওয়াদা করেছো আমার সব কথা শুনবে

যখন যা বলবো হৃদয়ের ঝোলা থেকে বের করে আনা

লাল রক্তাক্ত লোনা দু:খ আর বেদনাগুলো।

এবার তোমার দয়া ও মায়ার ঝোলাটাকে আরেকটু বড় করো

ছোট ঝোলাটার আরাম জিন্দেগীর জন্যে।

এখনও হাঁটছি স্বপ্নের ভিতর চাঁদের দেশে

তোমার আংগুল  ধরে হাঁটছি আমি

স্বপ্নের ভিতর আকাশ পেরিয়ে

চাঁদের জোছনা শরীরে মেখে

একদিন আকাশের সীমানায় পৌঁছালাম

তুমি টুপ করে সীমানাটা পেরিয়ে গেলে

খালি আংগুল নিয়ে আমি দাঁড়িয়ে আছিতে

এখনও আছি বড়ই একাকী।

এমনি করেই কেটে গেছে আমার কয়েক দশক

এগার থেকে এখন আমি একাত্তুর

বুঝতে পারিনি তুমি কেমন করে টুপ করে

সীমানা পেরিয়ে গেলে আমার আংগুল গুলোকে

নিরাপত্তাহীন করে।

তুমিতো জানতে তুমিই আমার একমাত্র নিরাপত্তা

সীমানার ওপারে কোন সীমানায় তুমি একাকী আছো

আমার কথা মনে পড়ে কি তোমার?

আমিতো একদিনও ভুলতে পারিনি তোমাকে

অমন করে তোমার চলে যাওয়াটাকে আমি

নালিশ করে রেখেছি তার কাছে

যে তোমাকে আমার নিরাপত্তা ছিনিয়ে নিয়ে গেছে।

স্বপ্নযাত্রা

তোমাকে ছোঁব বলে আমি স্বপ্নের ভিতর হাঁটি

হাঁটতে হাঁটতে সেই স্বপ্নের পথ আর শেষ হয়না

যতই আমি হাঁটি ততই তুমি দূরে সরে যাচ্ছো

মনে হলো স্বপ্নটা যুগ আর বছর পেরিয়ে যাচ্ছে।

আমিও চলছি অজানা পথে তোমার স্পর্শ পাবো বলে

জানিনা আমার পথচলা কি শেষ হবে কখনও

জানিনা তুমি কি সত্যিই আমার স্পর্শ পেতে চাও

তাহলে বলে দাও এ স্বপ্ন স্বপ্ন খেলা কখন শেষ হবে।

যদি শেষ না হয় তাহলে এ স্বপ্নের শেষ কোথায়

আর আমি আর কতকাল স্বপ্ন যাত্রী হয়ে  থাকবো

আর কতকাল আমি তোমার স্পর্শ কাতর জীবন কাটবো।

এবার আমায় তুমি ছুটি দাও অনন্ত যাত্রা থেকে।

মানুষের এমন পরাজয়

জ্বালিয়ে দাও এই জগতটাকে

কি কাজ তোমার এই জগতে

কি ভেবে বানিয়েছিলে এমন জগত

সে শুধু তুমিই জানো।

আমিতো নির্বোধ অন্ধ বধির

কিছুই জানিনা তোমার রহস্য

তেমন মানব তুমি আমাকে করনি

সুরতে আদম হলেও

এখনও জানিনা আমি কে?

জগতটাকে জ্বালিয়ে দাও

এমন জগত তুমি কখনও চাওনি

একথা আমি নিশ্চিত জানি

তাহলে কি কাজ তোমার এমন জগতে

মানুষের এমন পরাজয়

দেখছো কেমন করে?

 

তেমন ভাবি কেন

আমি কবিও নই নবীও নই

নাই কোন নতুন কথা

নাই কোন নতুন বাণী।

প্রাণের রশিতে বন্দী

আমি নগণ্য এক গোলাম

না নিজেকে চিনি

না চিনি তাকে

যে দয়া করে আমাকে

দিয়েছে প্রাণের বোঝা।

আমিতো জানিনা কেন এসেছি

কেনইবা ফিরে যাবো।

আমিতো নিজের কাছে

নিজেই অজানা

কেমন করে চিনবো তাকে

যে প্রাণ দিয়েছে এই দেহে।

আমি কবিও নই

আমি নবীও নই

তেমন অনুগ্রহ আমি

কখনও পাইনি

তবুও আমি তেমন ভাবি কেন?

জগতটাকে জ্বালিয়ে দাও

আমাকে ছেড়ে দাও আমাকে তুলে নাও

না হয়  তোমার  জগতটাকে জ্বালিয়ে দাও

আমাকে ছেড়ে দাও আমাকে তুলে নাও

শয়তান আর ফেরাউনকে জগতটা খেতে দাও।

আমার কি কাজ এখানে আমিতো মানুষ

তোমার শখের জগত আজ শুধুই বেহুঁশ

এমন জগতে  তোমার  কি কাজ বলো

ভিন্ন জগতে তোমার আমাকে নিয়ে চলো।

মানুষ আজ বড়ই লাচার এমন জগতে

শয়তানকে খতম করো এই জনপদে।

আমায় ছেড়ে দাও আমায় তুলে নাও

না হয় তোমার এই জগতটাকে জ্বালিয়ে দাও।

প্রেমের শরাব পাণ করেছি

প্রেমের শরাব পান করেছি প্রান করেছি

যতসব শরাব খানা শেষ করেছি শেষ করেছি

এখন আমি বুঁদ হয়ে নিজের কথা ভুলে গেছি

কারো কথায় কান দিবোনা পণ করেছি।

এবার আমি নিজের প্রাণ শুষে নেবো

এবার আমি এই আমাকে বিলিয়ে দেবো

কারো কথা শুনবোনারে শুনবোনা

কারো কথায় ভুলের বীজ আর বুনবোনা

শরাব  প্রেমে বুঁদ  হয়েছে আকাশ পাতাল

হুঁশ হারিয়ে বেহুঁশ সবাই টাল মাটাল।

কাঁপিয়ে দেবো খোদার আরশ আরশে আজিম

ফেরেশতারা করবে সবাই তোয়াজ তাজিম।

প্রেমের শরাব পাণ করেছি পাণ করেছি

সব জাহানের মধুশালা শেষ করেছি শেষ করেছি।