তুমি ২

আয়নায় চোখ রাখলেই দেখি তোমাকে বন্ধু
আকাশে চোখ রাখলেই দেখি তোমার চেহারা
আকাশ বলো আর পাতাল বলো সবখানেই তুমি
তাহলেই বন্ধু আমি কোথায় আর আমার অস্তিত্ব।

তুমি

তুমি ছাড়া আমি কোথায়
আমার সবকিছুই তুমি
তুমি আছ বলেইতো আমি আছি।

শেষক্ষণ

জানিনা এখন সকাল না সন্ধ্যা রাত্রি না দিন
জানিনা এখন আমি কোথায়,এখানে না সেখানে
শেষ নিশ্বাসে আগে হয়ত এটিিই আমার শেষ বয়ান
আসে পাশে যারা আছো প্রিয় থেকে প্রিয়তম।
আমি জানি তোমাদের সবার খুবই কষ্ট হচ্ছে
ঘুমহীন রাতদিন কেটে তোমরা সবাই ক্লান্ত
হয়ত ভাবছো এভাবে আমি কতদিন নিশ্বাস নেবো
আমিতো বহুকাল ধরে রূহের মালিককে বলেছি
আমারতো এখানে কোন কাজ নেই তবু পড়ে আছি
কর্মহীন পতিত জীবনে,যে জীবন আমি কখনই চাইনি।
প্রভু, হে জীবনের মালিক তোমার নির্দেশ প্রত্যাহার করো
এ দেহটাকে মাটি করে দাও,আমারতো কোন কাজ নেই
সংসারে আমি আরও কোন কাজে লাগিনি
আমার কি রকম হলে সবাই খুশী হতো জানিনা
এ কথা ভালই বুঝি সকলের মতো নই,আমি ভালই বুঝি
সংসারটা কখনই আমার জন্যে ছিলনা।
তবুও তোমার ইচ্ছায় আমি আমি একজন সংসারী
আমি এক গৃহহীন গৃহী, বেমোকাম মুকিম
প্রিয়জনেরা , সবাই আমায় ক্ষমা করে দাও
আমি কখনই তোমাদের মনের মতো ছিলমামনা ।
আমার চোখ ঝাপসা হয়ে গেছে,
তোমাদের আর দেখতে পাচ্ছিনা
এখনি আমার বিদায় বেলা
প্রভুর আকাশী যান নিয়ে দেবদূতেরা এখনি আসবে
যাদের তোমরা দেখবেনা
এটাই আমার শেষ বয়ান।
আমার অক্ষমতা আর সকল ব্যর্থতার কন্যে
ক্ষমা করে দিও
সবাই মিলে সাক্ষী দাও আমি মানুষটা
খুবই অযোগ্য ছিলাম
দিনকাল সময় অনেক কেটেছি
অর্থহীন জীবন বা নিশ্বাস নিয়ে
বলো সবাই ‘লা ইলাহা ইল্লাহ আল্লাহ’।
রাত ১০টা, ১৭ই মার্চ,২০১৫।

জুলুম

বহু জুলুম করেছি আমি
আমার এ দেহ এ রূহের উপর
যার উপর আমার
মালিকানা কখনই ছিলনা
সবইতো আমার বন্ধুর ঋণ।

পরাধীনতাই আমার স্বাধীনতা

পরাধীনতাই আমার স্বাধীনতা / এরশাদ মজুমদার

অনেক অভিযোগ আছে তোমার আমার বিরুদ্ধে
আজও আমি রয়ে গেছি অভিযুক্ত তোমার দরবারে
ঘর বলো সংসার বলো আমি কিছুই পারিনি
আমি জানি আমি মহা অযোগ্য এ জগত সংসারে।
তবুও আছি বেঁচে সংসার নামক বন্দী কারাগারে
কেমন হলে ভাল সংসার হয় তা আজও জানিনা
সংসার সুখের হয় রমণীর গুণে তাই আমি আছি গুণহীন
আমি খুবই সুখে আছি বোবা কালা বন্দী জীবন।
কেন যেন মনে হয় বন্দীত্বই আমার স্বাধীনতা
পরাধীন থাকলেই আমি স্বাধীন থাকি মনের ভিতর
আজ আমি তাই পরাধীন সবখানে স্বাধীন দেশে
আমি অযোগ্য অধম বলেই পরাধীন হয়ে থাকি।
সমাজ রাষ্ট্র স্বদেশ ভুমি সবাই বলে চুপ করে থাক
খাবার দাবার পোষাক আষাক সবই আছে তোর
শুধু মুখটা তোর বন্ধ রাখ রাষ্ট্রের স্বাধীনতার লাগি
ভাল করে বুঝে নে স্বাধীনতা কাকে বলে এদেশে এখন
আমাকে সবাই ভাল করে দেখে নাও কেমন স্বাধীন আছি।

অচেনা আমি / এরশাদ মজুমদার

অচেনা আমি / এরশাদ মজুমদার

‘ মান আরাফা নাফসা
ফাক্বাদ আরাফা রাব্বা’
যদি নিজেকে চিনতে পারে
তাহলেই তুমি প্রভুকে
চিনতে পারবে।’
আমি কি সত্যিই
আমাকে চিনি?
না চিনিনা
আমি আমাকে কখনও দেখিনি
এ দেহটাকেই
আমি বলে চালিয়ে দিচ্ছি।
আমি জানি এ দেহটা
একদিন বা এখনি
মাটিতে মিশে যাবে
আর আমি চলে যাবো
আমার প্রভুর কাছে
যেখান থেকে এসেছি
সেখানেই চলে যাবো।
আসা যাওয়া সবই প্রভুর ইচ্ছে
মাঝখানে এ মাটির পুতুলের খেলা
সময় তার
তিনি সময়ের মালিক
তিনিই পঁচাত্তর বা আরও কিছু।
জগতটা মায়ার খেলা
সেই খেলারই পুতুল আমি
‘হে বিরাট শিশু খেলিছ
আপন মনে
নিরজনে’
আমি সেই খেলারই পুতুল।
আমি জানিনা কেন এসেছি
কেনইবা ফিরে যাবো
আমি জানিনা আমি কে?
না জেনেই দিনগুলো কোথায় গেলো।
তবুও যাবার বেলায় মনে পড়ে
এ সংসার শুধু
মায়ার সংসার
এ জগত শুধু মায়ার জগত
‘হে বন্ধু বিদায়
তোমারে যা দিয়েছিনু
সে তোমাই দান
গ্রহণ করেছো যত
ঋনী তত করেছো আমায়’।

৮ই মার্চ, সকাল ৭টা ৪২
গুলশান, ঢাকা

অদৃশ্যের সাথে মিলন

চলেই যাবো
এবার চলেই যাবো প্রিয়তম
তোমার দৃশ্য জগত ছেড়ে
অদৃশ্যের কাছে
যার ডাক শুনি
রাতে আর দিনে।
আমি এবার যাবোই চলে
আর ডেকোনা প্রিয়
দৃশ্যের মাঝে তোমার
মুখ খানি দেখে দেখে
ভুলেছি আমার অদৃশ্যেরে
এবার বিদায় দাও হাসি মুখে
লুকিয়ে রাখো তোমার চোখের জল।
আমার বিদায় বেলায়
উত্‍সব করো
হাসি গাণে আনন্দে
যেতে দাও বাধাহীন ভাবে
চলেছি আমি মিলিত হবো
জীবনের সাধনা প্রিয়তমে।

Follow

Get every new post delivered to your Inbox.

Join 305 other followers